• চন্দন নন্দী

কবিতা - ছোট্ট কানাই




ছোট্ট কানাই , দুস্টু হয়েছে ,করছে শতেক দোষ ।

ব্যস্ত হলেন যশোদা মা , পিতা নন্দ ঘোষ।।


দুস্টুমীতে বিরক্ত সব , কুল নারীগণ।

দিনু হানা নন্দবাড়ি, ক্রোধাগ্নি বর্ষণ ।।


গোপীনারীগণ দিচ্ছে মাখন,করছে সেবা যতনে ।

মাখন ছাড়া , কানাই ছোড়া , হেরি নাহি কিছু ভুবনে ।।


দলবল বাঁধি, গোপী নারী পিছু , ভাঙলো সে কানা কলসি ।

কৃষ্ণ বদন -মনোহরণ ,হয়েছে এমনই দস্যি।।


শুনি মাতা কহে , কানাই তুই কেন, করিস এমন কাজ ?

বলিল কানু , ওরা মিছে কথা কয় , যেন নিশ্চয়,কারুর নাইকো লাজ ।।


ধৈর্য্যের বাঁধ, ভেঙে গেলো আজ , কহিলেন মাতা - কানাই এর নেই ছাড় ।

নিয়ে আসো রশি, বাঁধিনু যে কোষী, রইল না নিস্তার ।।


লক্ষ্য ধেনুর রশি দিয়ে বাঁধি , করিলেন মাতা চেষ্টা ,

তবু থেকে যায় দুই আঙ্গুল ফাক ,বাধা যাচ্ছেনা শেষটা ?।।


এই দুইআঙ্গুল ঈশ্বর আর ভক্তের মাঝে ফাক ।

চাইলেই তিনি, করেন কৃপা, ঘোচান সে ফারাক।।


এতক্ষনে কুলনারীগনে , শুনে ক্রন্দনে , বলিল এবার থাক ।

ছেড়ে দেও ওকে , ক্ষমা করো মোরে , অনেক হয়েছে ঘাট ।।


দীনের প্রভূ , মুক্তিদাতা, তাকেই বাধার চেষ্টা !!!!

রশির বাঁধনে নিজেরে বেঁধে- কানাই, মাকে ধরা দিলে শেষটা ।।





নীড়বাসনা আষাঢ় ১৪২৮