• ঋভু চট্টোপাধ্যায়

দুইটি কবিতা





নির্ভেজাল নামা বা ওঠা

এমনিই সিলেবাসহীন জীবন

মাথার এক কোণে আটকে থাকা ভয়

টেনে নিয়ে হাতের গন্ধ শোঁকায়।

হাত এখন ইথানল গ্রাসে।

যে মানুষটা এতদিন ঘুরে ফিরে জামা কাপড়

তার বাক্স বদলে আলু আর ফলহীন ফল সব্জি।

সাইকেলে বাঁধা থাকছে এই সব মাসের বন্ধ ভবিষ্যৎ,

যেখানে জনশূন্যতার খবর যাচ্ছে তাদের বাঁচা মানে

হা পিত্যেশের দাঁত নখ।

এভাবে আর কত দিন গেলে আবার একসাথে

হাতে হাত ধরা? একসাথে কয়েকটা শব্দ শুধুমাত্র

আঙুলের ডগায় নাহলে এমনিই ওঠাপড়া নির্ভেজাল।


সমীক্ষা

এক একটা নির্মমতা আড়াল করে নিলেও

মুখ খোলবার আগে একটা গাণিতিক ধরপাকড়

চলে।তারপর আচমকা দুর্ঘটনায় মারা যায় পৃথিবীর

শেষতম সম্প্রদায়ও।দেখতে হবে কোন জায়গা

এক চোখে দেখলে হাজার মনে হয়।

তারপর তৈরী সিঁড়ি, না থাকলে জিন্দাবাদ।

একটু চেয়ার একটু মুছে দেওয়া আর চুপ থেকে

শুধু বিপরীত ভুল খোঁজা।

তার মানেই সব ঠিক।না থাকলে একবার ঘেউ,

আরেকবার মিউ।

লেজ নেড়ে সেই আগের রাস্তায়।

এ’বছর একটা সম্ভাবনা আছে

তিনপুরুষ পায়ের উপর পা।

নীড়বাসনা  বৈশাখ ১৪২৯