• অরুনাভ দত্ত

দুইটি কবিতা


ঘুমহীন রাত

এরপর আগুন পেরিয়ে এলাম,

বিশাল বিছানায় অতিথি আমার -

মাঝ্ রাতে র হঠাৎ বুক ব্যথা,

বুকে প্রলয় এলেও বন্ধুদের আসে যায় কি তাতে ?

সভ্য মানুষদের থেকে পালিয়ে যেতে যেতে দেখি -

রাত এর ভালবাসা রা সুখে আছে খুব, অন্য মরশুমে ।

রবারের মত বাঁকতে থাকে ঠোঁট আমার,

মুখটা কে সুন্দর করে গুণতে থাকি ক্ষতির সংখ্যা,

মহাসমুদ্রে র মাঝখানে এসে বই এর পাতায় –

খুঁজে পাওয়া লম্বা একটা চুলে র মায়া,

পশ্চাতের মুখটা চেনা ছিল বটে ।

কেন সেই চাঁদের রাত ফিরে ফিরে আসে

মধ্যরাতের বিছানায় !!

ভীতি অন্ধত্বের অথবা একটি রোজনামচা

কোটি আলোর বালুকণা,

মনে র ভাঙন জমি তে একা বসে আমি –

দোষারোপগুলো বন্যায় ভেসে গেলে

জেগে থাকে পরিণামের পাথুরে দেয়াল ।

ভয়গুলোর ইন্‌টারভ্যু নিতে হবে,ভাবিনি কোনদিন-

পুরু চশমা র কাঁচে সেঁধিয়ে থাকা ভয় ,

অথবা বুকের ভেতরে আর কানের পর্দায় নাইট শো ভাঙার ভিড়,

চারিদিকে ভাঙা খেলনা ছড়িয়ে বসে –

সান্ত্বনা র ছাতাহীন বৃষ্টিতে গুণে চলা,

সবুজ আলো র ছোবল, চোখের পাতা খোলা র বিলাসিতা,

বোতলের জল শেষ,শেষ কুকুরের বিস্কুট,গাজরের স্টক,

এবার কাদাজলে পোকা আর হাঙরের সাথে লড়াই,

জি-স্ট্রিং পোয়াতির লাবণ্য শুষে নেয়া র সময় আর নেই,

ঘুমচোখে সকালে অফিস – রেচণের রোমহষর্ক সাধারনত্ব,

রাতভোর আঁকড়ে থাকা স্বপ্ন – মুত্রাধারে ভেসে চলে যায় ।।

নীড়বাসনা আষাঢ় ১৪২৮