• কৌশিক মন্ডল

কবিতা - গোলক ধাঁধা


গোলকধাঁধা লাগছে সবই;

চুলকে মাথাও, মাথায় কিছুই ঢুকছে না।

পড়ছি ভূগোল, “পৃথিবীটা গোল,

বনবনিয়ে, ঘুরছে নাকি চরকি ঘোরা!”

হনহনিয়ে, রাস্তা হেঁটে, গড়ের মাঠে, যেদিকে চাই,

নাক বরাবর, চ্যাপ্টা সবই;

গোল তো কোথাও দেখছি না।

না ডাইনে বাঁয়ে, এ কেমন ঘোরা?

ঠায় দাঁড়িয়ে, যখন কারওই

একটু মাথাও ঘুরছে না!

বইতে লেখা, “দেশ বিদেশে

মানুষ থাকে মিলে মিশে।”

ইতিহাস তা বলছে না।

বলছে অনেক ঠকে শিখে,

“দেশ মানেই যুদ্ধ লড়াই

দেশ মানেই নিজের বড়াই।”

মিললে সবাই, থামবে লড়াই,

তাই কি সবাই মিলছে না?

“সবচাইতে শূন্য ছোট”, অঙ্ক শেখায়;

সত্যি কি তাই?

হিসেব কষে, সংখ্যা শেষে

শূন্য যত জুড়বে তত

তরতরিয়ে, বাড়বে তত।

হড়বড়িয়ে, মানুষ কি তাই

শূন্য পিছে, ছুটছে সবাই?

আপন আপন জমা খাতায়

টাকার অঙ্কে, আরও আরও শূন্য চায়!

শূন্য লোভে, শূন্য আশায়

ছুটতে থাকে, শূন্য নেশায়!

ছোটার শেষে, শেষ নিশ্বাসে

জমা-খরচের হিসেব কি আর মিলতে চায়!

বিজ্ঞানও নয় জ্ঞানের ভাঁড়ার;

বলে একটি কথাই, বারংবার,

“প্রশ্ন কর, প্রশ্ন কর!”

পৃথিবী কি সত্যি গোল?

ঘুরছে পাগল অনর্গল?

আকাশ কেন সবুজ নয়?

মনের রঙ কি ফ্যাকাশে হয়?

কেন দিন ফুরালে রাত্রি কালো?

কেন বর্ষা কালে বৃষ্টি ভালো?

কোথায় পাবো গানের সুর?

মনুষ্যত্ব কত দূর?

কেন মানুষ মারছে মানুষ?

কেন তবু আশার ফানুস?

যেথায় ধাঁধাঁ, “প্রশ্ন কর, প্রশ্ন কর!”

তবেই যদি গোলকধাঁধাঁ বুঝতে পার।

নীড়বাসনা আষাঢ় ১৪২৮