• পার্থ সেন

সম্পাদকের কলমে

নীড়-বাসনার সকলের পক্ষ থেকে আন্তরিক প্রীতি ও শুভেচ্ছা জানাই আমাদের সকল পাঠক কে। খুব ভালো লাগছে আমাদের তৃতীয় সংখ্যা আপনাদের কাছে পৌঁছে দিতে পেরে। সমস্ত লেখক এবং যাঁরা অলংকরণ করেছেন তাঁদের অসংখ্য ধন্যবাদ। আর ধন্যবাদ আমাদের সমস্ত পাঠকদের। আর সেই সমস্ত মানুষরা যারা আছেন আমাদের শুভানুধ্যায়ী বন্ধু হয়ে তাঁদের কে আর ধন্যবাদ দিয়ে ছোট করতে চাই না! আপনারা সবাই ভালো থাকুন আর আমাদের সঙ্গে থাকুন।

আমাদের এবারের সংখ্যার থীম রইল – “শিশু এবং কিশোর সাহিত্য”! আমার এক দাদা গত কুড়ি বছর ধরে প্রবাসে রয়েছেন, সেদিন ইমেলে “শিশু এবং কিশোর সাহিত্য” কে বিষয় করার কারন জানতে চাইলেন। আসলে বাংলা ভাষার জন্য যে অভিমান, যে ভালোবাসা, যে অহংকার, যে গৌরব আমাদের আছে তার ভিত্তি তো সেই ছেলেবেলার দিনগুলিতেই! সোনার খাঁচায় সেই দিন গুলি হয়তো আর মোড়া নেই, কিন্ত আজও ছোটবেলার সেই দিন গুলোর গন্ধে শৈশব ফিরে ফিরে আসে। আর আমাদের শৈশব মানে তো বই। টেলিভিশনের সীমিত সময়টুকু বাদ দিলে গল্পের বই ছিল আমাদের নির্ভেজাল অবসর। এখনো মনে পড়ে যায় সেই সব দিন গুলোর কথা যখন স্কুল থেকে ফিরেই খোঁজ নিতাম বা সকালে অপেক্ষায় থাকতাম খবরের কাগজের সাথে কখন ব্যালকনিতে এসে পড়বে একটা আনন্দমেলা বা একটা শুকতারা বা একটা সন্দেশ বা একটা কিশোর ভারতী। সেই সব দিন গুলোর কথা যখন বইমেলার প্রাঙ্গনে তুমুল উৎসাহে খুঁজতাম নতুন সংকলনে ফেলুদা বা প্রফেসর শঙ্কু বা টেনিদা বা ঘনাদা বা কর্নেল বা ঋজুদা অথবা কাকাবাবু বা গোগোল আরো কত জন কে? অথবা বিদেশী সাহিত্যে জুল ভার্ণ বা লুই স্টিভেন্সন বা কোনান ডয়েল বা লুইস ক্যারল আরো অনেক কে। আসলে শিশুমনের যে যথার্থ বিকাশ আমাদের চলার পথে পাথেয় হয়ে আছে আর আমাদের অনুভূতি গুলোকে পরিপূর্ণতা দিয়েছে তার বেশিরভাগটাই আমাদের প্রজন্ম সাহিত্য থেকেই শিখেছে। তাই আর একবার সেই সব শৈশবের দিনগুলোর স্মৃতি রোমন্থন করতে গিয়ে আমাদের এই সংখ্যার কথা ভাবা।

কমপিউটার, ল্যাপটপ আর মোবাইলের নিরবিচ্ছিন্ন ঝংকারের ফাঁকে যদি একবার জানলার বাইরে চোখ নিয়ে যাওয়া যায় সে চেষ্টা রইলো! প্রকাশনার সময় হিসেবে আমরা চেয়েছিলাম ৩০শে অক্টোবর, শিশু সাহিত্যের জনক সুকুমার রায়ের জন্ম বার্ষিকীর দিন। কিন্তু কিছু টেকনিকাল কারণে প্রকাশনা একটু দেরী হয়ে গেল। নিজগুনে আমাদের ক্ষমা করবেন, আর কামনা করব আমাদের পাশে যেমন আছেন তেমন করে থাকবেন সবসময়ে।

আপনাদের সকলকে ইংরাজি নববর্ষের আগাম শুভেচ্ছা জানাই। সামনের শীতের ছুটি সবার ভালো কাটুক। সবাই ভালো থাকবেন।

নীড়বাসনা আষাঢ় ১৪২৮