• দেবাশিস ভট্টাচার্য

কবিতা গুচ্ছ

এখনো আমি তোমায় ভালবেসে

আধেক ঢাকা পদ্মপাতায় আছ

মাঝে মধ্যে বুকের মধ্যে নাচ

তোমায় দেখা হয় নি বলে তাই

একবারও কি দেখা দিতে নাই?

আকাশ ভাসে মেঘের অবগাহন

তারই কথা পদ্যে সাত কাহন

এমন দিন এমন স্মৃতিময়

তোমায় ভেবে অপার বিস্ময়

আধেক ঢাকা বারান্দার কোণে

ভেজা বাতাস নিজের কণ্ঠ শোনে

ফেলে গিয়েছ উপুড় করে বই

খুঁজে বেড়াই পড়ার মানুষ কই

উলুধ্বনি উলুধ্বনি এল

ঈষৎ জ্বরে মাথায় এলোমেলো

আমহারস্ট স্ট্রিট কখন গেছে ভেসে

আধেক ঢাকা পদ্মপাতায় চাঁদ

এখনো আমি তোমায় ভালবেসে

একই রকম বদ্ধ উন্মাদ

যাই

চর জেগে উঠছে নদী থেকে তিমিমাছের মত বালুবেলায় সারারাত হেঁটে যেতে ইচ্ছা হয় একা নিঃসঙ্গ

খালি পায়ে যেতে যেতে পায়ে লাগে শামুক পাশ দিয়ে লেংচে হাঁটে লাল শাদা কাঁকড়া দূরে ডুবন্ত আলোয় মাছধরা নৌকা ভেসে চলে ছৈয়ের নিচে কেউ আগুন জ্বেলেছে ভাত আর শুঁটকি ?

এ নদী কোথায় গেছে জানো ?

এই চর একদিন নদীর গর্ভে ফিরে যাবে তবু আমি সারারাত বালুর উপর

কখনো অর্ধেক জলে পা ডুবিয়ে হেঁটে যেতে চাই একা নিমগ্ন

নীড়বাসনা আষাঢ় ১৪২৮