• রুপম গুহ খাসনবিশ

অণু গল্প - পহেলা জুন



শেষ লোকাল ট্রেনটা কালুবাথান স্টেশন ছেড়েছে ঘণ্টা খানেক হবে ! মাঝে মাঝে দু একটা দূরপাল্লার ট্রেন হুস হুস বেরিয়ে যাচ্ছে তীব্র শব্দ তুলে ! ছোট্ট স্টেশন ! জঙ্গলের মাঝে ! ঘুটঘুটে অন্ধকার চারিদিক ! শব্দ বলতে ঝিঁঝিঁ পোকার ডাক, আর আলো বলতে অসংখ্য জোনাকির মিট্ মিট্ !

ধানবাদে গেছিলাম অফিসের কাজে ! অনেক দিন ধরেই শুনেছি এই কালুবাথানের অনেক পুরানো এক হনুমান মন্দিরের নানান গল্প ! ইচ্ছে ছিল একবার দেখার ! তাড়াতাড়ি ধানবাদের কাজ শেষ করে আসানসোল গামী এক লোকাল ট্রেনে চেপে বসলাম ! মাঝ পথে কালুবাথান নেমে মন্দির দর্শন করে পরের ট্রেনে আসানসোল চলে যাব ! 40 মিনিটের সফরে সন্ধ্যে 7 টা নাগাদ নেমেছিলাম কালুবাথান স্টেশনে ! প্রায় জন-মানবহীন দেখে বেশ অবাক হয়েছিলাম ! হনুমান মন্দিরটা কোন দিকে তা জানবারও কোন উপায় ছিল না ! সন্ধ্যে সাতটা টা যেন মধ্যরাত্রি মনে হচ্ছিলো ! যাই হোক এদিক ওদিক খুঁজে অবশেষে আবিষ্কার করলাম মন্দিরটা ! স্টেশন থেকে এক কিলোমিটার দূরত্বে ! একটা প্রদীপ জ্বলছিল মন্দিরের ভেতরে ! সেই আলোয় হনুমানজির দর্শন হলো কিন্তু অন্ধকারে মন্দির দর্শন হলো না ! মন্দিরের ভেতরে এক বৃদ্ধ সাধু শুয়েছিলো ! বুঝলাম ইনিই সম্ভবত পূজারী এই মন্দিরের !

ফিরে এলাম স্টেশনে ! তখন রাত সাড়ে দশটা হবে ! স্টেশনে ঢোকার মুখে ঝুপড়িতে চটি, খাকি প্যান্ট আর তেলচিটে সাদা স্যান্ডো গেঞ্জি পরা এক বয়স্ক RPF এর লোক ছাড়া আর কোন জনমানব চোখে পড়লো না ! সে অবাক আমায় দেখে ! তার কাছে শুনলাম শেষ ট্রেন ছেড়ে গেছে প্রায় এক ঘণ্টা আগে ! কাল ভোর 5 টার আগে কোন ট্রেন নেই ! বুঝলাম অগত্যা প্লাটফর্মে রাত কাটানো ছাড়া আর কোন উপায় নেই !

ঝিঁঝিঁ পোকার শব্দ শুনতে শুনতে কখন চোখ লেগে গেছিলো,তীব্র এক বিস্ফোরণের মত শব্দে চমকে উঠি ! অসংখ্য মানুষের আর্তনাদ ভেসে আসতে থাকে up লাইনের দিক থেকে ! মৃত্যু যন্ত্রণায় যেন কাতরাচ্ছে শয়ে শয়ে মানুষ ! যে দিক থেকে শব্দ আসছে ছুটতে থাকি সেদিকে ! হ্যাঁ এইতো ... পৌঁছে গেছি প্রায় ! কিন্তু গাঢ় অন্ধকারে কিছুই দেখতে পাচ্ছি না যে ... ! অনুভব করলাম কোন বাচ্চা তার ছোট্ট দুটো হাত দিয়ে জড়িয়ে ধরেছে আমার পা ! অন্ধকারে তখন চোখটা একটু সয়ে এসেছে ! ভাল করে তাকিয়ে দেখি বছর চারেকের একটা মেয়ে আমার পা জড়িয়ে ধরে যেন কিছু বলতে চাইছে ! আমায় নিয়ে যেতে চাইছে রেল লাইনের দিকে ! প্লাটফর্ম শেষ করে ওর সাথে নেমে গেলাম লাইনের মাঝে ! কিসে যেন হোঁচট খেয়ে পড়ে গেলাম মাটিতে ! চারিদিকে আর্তনাদ ! উঠে দাঁড়াই ! সারা শরীর ভেজা ভেজা লাগছে ! তখন সবে চাঁদ উঠেছে ! সেই আলোয় দেখি চারিদিকে শুধু রক্তাক্ত মানুষ ছড়িয়ে ছিটিয়ে, সাহায্য চাইছে, বাঁচতে চাইছে ! আর্তনাদ করছে যন্ত্রণায় ! .... জ্ঞান হারাই যখন জ্ঞান আসে তখন আমি প্লাটফর্মে শুয়ে ! আকাশটা সবে ফিকে হতে শুরু হয়েছে ! পাশে বসে হাতপাখা দিয়ে মাথায় হাওয়া করছে সেই RPF ! উঠে বসি ! হিন্দিতে ঘটনাটা বলি লোকটাকে ! মন দিয়ে সব শুনে সে বলে .. " সাহাব, আজ পহেলা জুন হ্যায় ! ইস তারিখ পে ১৯৯৫ সালমে, জম্মু-তাওয়াই এক্সপ্রেস কা অ্যাকসিডেন্ট ইসই জগেপে হুয়া থা ! শ সে জাদা লোগ মারে গয়ে ঠিক এহিপে ! হসপাতাল পে ওর কিতনা পাতা নেহি সাহাব"


নীড়বাসনা আষাঢ় ১৪২৮