• শুভাশিস ভট্টাচার্য

কবিতা - আমি ও আমার দেবতারা

বোঁটা-সুদ্ধ শরীর

আটশ তেত্রিশ ফুট নীচে আমার শরীরে মহুয়ার মধ্যরাত এলোমেলো অন্ধকারে শরীরের খানা খন্দ পেরিয়ে অনেক আলোর চাদরে নিলাম হয় জোনাকির আকাশ এক পুকুর তারা এক পাহাড় মেঘ

এক নদী ভালবাসা

নিলাম হয় ক্ষণস্থায়ী প্রেম স্বর্গের গোপন বাগানে সহস্র যোনি চিহ্ন গায়ে শুয়ে থাকে আমার দেবতা অহল্যা প্রতীক্ষায় লেবিয়া মেজরায় মাথা রেখে আপৎকালীন ভালবাসার খোঁজে হাতড়ে ফেরে সর্বাঙ্গ নগদ দামে কেনা বেলেল্লাপনা

আর বোঁটা-সুদ্ধ শরীর

মৃতপ্রায় সময়ের সীমান্তে

যমুনার বুকের কাছে পুড়ে যায় আমার দেবতা মুখ, চোখ, দাঁত, চুল, খুলি… উড়ে যায় নীলকণ্ঠ ধোঁয়ায় আমার দেবতা সতীর শবদেহ পুড়ে যায় অনন্ত সময়

দধীচির হাড়ে দাঁতন কাঠি লেগে থাকা মাংসের কুচি রং মেখে সেজে ওঠে অভিসারে নিলাম হয় শ্যাওলার বিছানায় নিশাচর ঠোঁট

মৃতেরা পাশ ফিরে শোয় খুঁজে নেয় ভালবাসার মত কিছু জড়িয়ে ওঠা সন্ধ্যা-মালতী

আর আবিষ্ট ঊরুর গভীরতা

পায়ের ফাঁকে লেবিয়া মাইনরায় জীবনের গোপন দ্বীপে মৃতপ্রায় সময়ের সীমান্তে নিলাম হয় ভালবাসার অভ্যাস অভ্যাসের ভালবাসা ছুম ছুম গব্ভা

অবিনাশ কবিরাজ লেনে উদোম হয় রাত শরীরের অলিগলি মল, মূত্র, কাদাজল শাড়ি, সায়া, ব্লাউজ উপচে পড়া নর্দমা ম্যান-হোলের ঢাকনা থাই, পা, বুক খুলে রঙ মাখানো আমার দেবতা তন্দুরের অপেক্ষায় ছুম ছুম গব্ভা

ডুবে যাচ্ছি পিপে-ভরতি দেশি মদে উড়ে যাচ্ছি গাঞ্জা ভাঙ্গের ধোঁয়ায় নেচে নিচ্ছি পাছায় লাথ খেয়ে খানিক তা ধিন ধিন তা তারপর অনায়াসে তন্দুরের সহমরণে আমি ও আমার দেবতা ছুম ছুম গব্ভা

নীড়বাসনা আষাঢ় ১৪২৮