• দেবযানী গাঙ্গুলী

কবিতা - হরেক ভূতের গপ্পো

লাল মাটির ওই কেষ্টখুড়ো, গল্পদাদু বলে লোকে জাপটে ধ'রে গপ্পো শোনায়, ছেলে -বুড়ো যাকে তাকে । চতুর্দশীর চন্দ্র দেখে, দাদুর মাথায় ভূতের থিম্ বাদল সাঁঝে ছেলেগুলো যায় যে কোথায়, ঘোড়ার ডিম! জুটিয়ে তাদের বসেন খুড়ো, সোনাঝুরির তলটিতে -- ন্যাপলা - বুবাই -ছোট্ট তোয়া, কচিকাঁচার দলটিতে । মামদো ভূতের নাম শুনেছিস?কোন্ গাছেতে করেন বাস? শ্যাওড়া গাছে শাঁকচুন্নি অট্টহাসেন বারোমাস । একানড়ের চক্ষু জ্বলে লাল টুকটুক অহর্নিশ - ডোবার ধারে পুঁচকে ভূতে, রাত্রি বেলা কী ফিসফিস! দত্যিপুতে নেচে বেড়ায় অমাবস্যের মাঝরাতে কলসি থেকে জল খেয়ে যায়, ছেলেধরার ফাঁদ পাতে । ছাতিম তলায় নাটক শেখায়, শিল্পী ভূতের নাতজামাই তারার আলোয় পদ্য লেখে বিচ্ছুভূতের ছোট্ট ভাই । ভূতের বাপে দাঁড় বেয়ে যায় কোপাই নদীর ধার ঘেঁষে - শাপলা তুলে বেচতে আসে শনিবারে দিনের শেষে । গপ্পো শুনে গা ছমছম ....আকাশ মেঘে ঘনঘোর - চড়াৎ ক'রে বাজ পড়ল তালগাছেতে ভীষণ জোর!

নীড়বাসনা আষাঢ় ১৪২৮