• অস্মিতা গাঙ্গুলী

দুটি ছড়া - অস্মিতা গাঙ্গুলী

ত্রিলোকপতির ডায়েট

লালগড়ের ঐ ত্রিলোকপতি, বুদ্ধি মাথায় ঠাসা, মেজাজখানা দিলদরিয়া মানুষ তিনি খাসা । ভোরের বেলা ওঠেন তিনি শীত বা প্রখর গ্রীষ্ম, চোখটি খুলেই আসন সারেন চক্র থেকে শীর্ষ । ত্রিলোকপতি সজাগ বেজায় শরীরটি চান ফিট, ছাতির গড়ন ভীমের মতন ভুঁড়িটি তাঁর হিট । বুদ্ধি দিয়ে ভাবেন তিনি খাবার খাবেন কম, মাত্র খাবেন দশটি লুচি, সঙ্গে আলুর দম । প্রাতঃরাশে এই কটিতেই করতে হবে সারা -- রাখতে হবে মনে যাতে পেটটি না হয় ভরা । দশটা নাগাদ খাবেন না হয় পাঁচটা ছ'টা ডিম, একটু তো কম খেতেই হবে চাইলে হতে স্লিম । দুপুরবেলা ভাতের পাতে শুক্তো থেকে দই সঙ্গে যেন অবশ্য হয় মাংস, ভেটকি, কই । ত্রিলোকপতির ডায়েট চার্টে প্রোটিন না যায় বাদ , উপকারী করতে খাবার ভড়কে না যায় স্বাদ । ভিটামিনের অভাব হলো!!এইটি বড় শঙ্কা, সেই কারণে খাবেন তিনি আটটি কাঁচা লঙ্কা । দিনের শেষে ইচ্ছে হলে খাবেন বিরিয়ানি, সকাল থেকেই আছেন যে আজ জিভে লাগাম টানি । এইভাবেতে কাটলে ক'দিন সফল হবেই ড্রিম ডায়েট করে বুদ্ধি দিয়ে হবেন বাবু স্লিম । চিন্তা শুধু একটা মনে, এতটা কম খেলে -- পরিশেষে রোগার চেয়ে রুগ্ন হয়ে গেলে!!

বুদ্ধি যাবে বেড়ে

রসায়নের বিখ্যাত সেই নামটি সবার জানা ভুবনমোহন চৌধুরী, তাঁর বুদ্ধি মেলে ডানা । দীর্ঘ দিনের গবেষণার আজকে পেলেন ফল জানল সবাই ফন্দি, যাতে বুদ্ধি পাবেই বল । সাগর তলে তিমির মাথায় গুপ্ত ছিল তেল সেই তেলেতেই দেখান তিনি রসায়নের খেল । পটাশিয়াম, ফ্লুরিন মেশান কত্তকিছুর সাথে মাছের মাথার তেল তো কাঁচা যায় না দেওয়া পাতে! দুই ফোঁটা তেল দাও যদি ভাই খুলির ভেতর ছেড়ে পিটুইটারি ডাক পাঠাবে-- বুদ্ধি যাবে বেড়ে । যেই না এ তেল দিলেন তিনি গাধার মাথায় ঠেসে বীজগণিতের সূত্রাবলী বলল বিনা ক্লেশে । ছাগলরা ও নাড়ল মাথা নামতা বলার তালে, গুডমর্নিং বলছে মোরগ রোজ যে ঘরের চালে। গরুর চোখে চশমা আঁটা, পড়ছে কাগজ রোজ তেল পেয়ে সে আজ ভুলেছে সবুজ ঘাসের খোঁজ । রাখাল মোষের পাল কে নিয়ে ইস্কুলেতে যায় -- উন্নয়নের আসলো জোয়ার সবাই এ তেল চায় । তোমরা যদি মাথায় মাখো চৌধুরীর এই তেল, মগজ ঠাসা বুদ্ধি হবে, নাসা ও দেবে মেল । বিরল তেলের চাহিদা পায় উপর উপর বৃদ্ধি, নয় রসায়ন! চৌধুরীর আজ বিপণনেই সিদ্ধি । ভারত ছেড়ে তেলের বাজার ইতালি রোম গ্রিস, বিখ্যাত আজ চৌধুরীদের অয়েল ইন্ডাসট্রিস।

নীড়বাসনা আষাঢ় ১৪২৮