• সায়ন ভট্টাচার্য

কবিতা- অকর্ণ এবং প্রলাপ

১।


অকর্ণ


শুধু একবার সেই হৃদকম্পন শুনব বলে,

ভোর রাতে পূব দিকে মুখ কোরে দাঁড়াই।

পুরনো সূর্যের তাপে,

রাত জাগা শহর অলস আড়মোড়া ভাঙ্গে

বাসি অবোধ স্বপ্ন চোখের পাতা থেকে ধুয়ে ফেলার সময়..

না; সেই হৃদকম্পন শুনতে পাইনি।

বিভ্রান্ত-বিকেলে, শহরের বুকের ওপর পাগল অবস্থায় ছুটতে ছুটতে,

আস্তাকুঁড়ের পাশে শিশু কন্যার

ক্ষুধার্ত, অন্ধকার, নীরব চোখদুটো দেখে থমকে দাঁড়িয়েছি,

শুধু একবার সেই হৃদকম্পন শুনব বোলে।

একি ভাবে বহু বার বহু জায়গায় থমকে গেছে পথ।

জীবৎ দেহ বা নির্জীব পাথরের বুকে কান পেতে,

শব্দকোষ হাতে আমি আজও এই মহাপৃথিবীর বুকে হেঁটে চলি,

শুধু একবার সেই হৃদকম্পন শুনব বলে।



২।


প্রলাপ


কি প্রচণ্ড ক্ষোভ তাড়া করে এনেছে

আমায়, এই ধূসর জনপদে।

উঁচু উঁচু একা অট্টালিকা,

কোলাহলমুখর তবু নির্জন প্রান্তরে,

কি প্রচণ্ড ক্ষোভ, নিজের জন্য, নিজের ভেতর বয়ে, হাঁসি মুখে।

শয়তানের কড়াইতে সকাল সন্ধ্যে

নিজের মাংস ঘিলু মজ্জা পুড়িয়ে,

পিশাচদের ভোজে বিলিয়ে নিজেকে

ছুটে চলি, সেই প্রচণ্ড আগুন বুকে নিয়ে।

কেন? কেন?? ক্লান্ত প্রশ্ন জাগলে মনে,

শুধু নিজে পুড়বো আর তোদের পোড়াবো বলে।

লেখক পরিচিতি - সায়ন বর্তমানে পূনাবাসী এক চাকুরিজীবি যুবক। ভাষার প্রতি ভালোবাসা থেকে যা কিছু জন্ম নেয়, তার সচেতন পরিবেশনে সবসময়ে উদ্যোগী।

নীড়বাসনা আষাঢ় ১৪২৮