• দিলীপ চক্রবর্ত্তী

কবিতা- উদাসী  হাওয়ায় এবং উদ্বায়ী

উদাসী হাওয়ায়

দরমার বেড়া,ছেঁড়া তেরপল সামিয়ানা করে নিশ্চিত বাস একটি ছোট্ট ঘরে, ঘরের অন্ধকারে বসে আছি নিশ্চুপ! জানালা দিয়ে তাকালেই জোনাকির আলো আঁধার ভেঙ্গে ভেসে পুরানো একটা তান-- জল ছুঁয়েছে পা,জল ছুঁয়েছে কোমর, জল ছুঁয়েছে মাথা,বেপরোয়া মন, অনিয়মে কাঁদে,আবার বেনিয়মে হাসে, বিষাদী মেয়ের প্রেমে উদাসীন চুম্বন। ঝাপসা নেগেটিভ রাতে মরানদীর বান। ছড়ানো কিছু সংলাপ নির্বাক আমি। মৌনতার কিছু ফুল,কোনে ফুলদানিতে, সেই রাতেই এক কবিতার জন্ম,শূন্যতা বিষয়ে। আর আমি কাঁসাই নদীতেই ডুব দিলাম!!

উদ্বায়ী


পারদ মন-- কখন কি যে ঘটে জতুগৃহে স্বপ্ন ভেঙ্গে গেলে --তাকিয়ে কড়িকাঠে। উঠে দাঁড়াই--আমি অর্জুন কুরুক্ষেত্রে, শতবার শতরূপে--শত শত যোনিপথে। ভোলবদলে ভোলানাথ--সব নাটুকে ছাড়াছাড়ি, নষ্ট হয়েছি আমি--ধর্মে এবং জিরাফে। কবন্ধ জীবন--অস্তিত্ব পুড়ে,পড়ে থাকে সাদা ছাই।

নীড়বাসনা আষাঢ় ১৪২৮